Home  /  রিভিউ

“আমার বাচ্চাটা একদমই পড়াশুনা করতে চায় না”- এই অভিযোগ কমবেশি সকল অভিভাবকেরই। নিজের সোনামণির পড়াশুনা নিয়ে আপনারই হয়তো ভাবনার অন্ত নেই। তবে কেন বাচ্চারা পড়াশোনায় অমনযোগী কিংবা তাকে মনযোগী করে তুলতে কি কি বিষয়ে লক্ষ্য রাখা জরুরি তা সম্পর্কে কতটুকুই

আপনি কি একটি ডিরেক্টর টেবিল কেনার কথা ভাবছেন? ক্লাসি ও সময়োপযোগী একটি ডিরেক্টর টেবিল এর সন্ধান করছেন? কিন্তু আপনার জন্য আদর্শ ডিরেক্টর টেবিল কিভাবে বাছাই করবেন সেই সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন না? চিন্তার কোন কারন নেই। আপনি হয়ত নিজের পরিচয় তৈরি করতে

বইয়ের যত্নে বুক শেলফ এর কোনো বিকল্প আছে বলুন? না নেই। আপনার প্রয়োজনীয় কিংবা প্রিয় সব বইগুলোই আপনি চাইবেন সাজিয়ে রাখতে। তাই না? কিন্তু একটি বুক শেলফ ছাড়া কিন্তু আপনি বইগুলোর পরিপূর্ণ যত্ন নিতে পারবেন না। যতই গুছিয়ে রাখার চেষ্টা করেন।

আপনি কি আপনার আধুনিক লিভিং রুমের জন্য একটা আকর্ষণীয় টিভি কেবিনেট খুঁজছেন?কিন্তু এখনও বাছাই করতে পারছেন না? তাহলে আপনি একদমই ঠিক জায়গায় এসেছেন। আপনার মত কিন্তু এমন অনেকে আছে যারা লিভিং রুমের জন্য সঠিক ফার্নিচার বাছাই করতে পারেন না। এর

এই যে, সার্চ ইঞ্জিন দিয়ে এখনই খোঁজ শুরু করেছেন? ভাবছেন কীভাবে বুঝলাম? সহজ ব্যাপার প্রথমবার ডিভানের নাম শুনে আমার হাল আপনার মতই হয়েছিল। তবে এখন আমি ডিভানের অনুগত ভক্ত। এবার ভাবছেন কীভাবে হলাম? তবে চলুন একে একে আপনার প্রশ্নের জটগুলো খোলা

অন্দরসজ্জায় ডাইনিং রুম সাজানোর ব্যাপারটি বেশির ভাগ সময়ই সবার চোখ এড়িয়ে যায়। অথচ তিন বেলার খাবার থেকে শুরু করে বিকেলের নাস্তা বা পারিবারিক আড্ডা জমাতে এই রুমের ব্যবহার করতেই আমাদের সবথেকে বেশি দেখা যায়। অনেকে মনে করেন, ডাইনিং রুমে চেয়ার-টেবিল ব্যতীত

আপনার বাসায় অতিথি আসলে সবার আগে চোখ যায় আপনার বসার ঘরে। তাই সবাই চায় বসার ঘরটা একটু পরিপাটি করে সাজিয়ে রাখতে। কথায় বলে ‘ আগে দর্শনধারী পরে গুনবিচারি ’। আপনিও এই কথার সাথে এক মত হবেন। বাইরে থেকে একজন এসে যদি

ড্রেসিং টেবিল আমাদের সবার জন্য একটি অতি প্রয়োজনীয় আসবাব। বর্তমানে এমন কোন বাড়ি খুঁজে পাওয়া যাবে না যেখানে ড্রেসিং টেবিল নেই। ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে ড্রেসিং টেবিলের কোনো জুড়ি নেই। শুধু সৌন্দর্য নয় এটি একটি অত্যন্ত অত্যাবশ্যকীয় একটি আসবাব। ড্রেসিং টেবিল কি

নিশ্চয়ই বিভিন্ন দোকান ঘুরে ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন? নয়তো এখনো কোনো ওয়েবসাইট ঘাঁটাঘাঁটি করছেন? এটা সাধারণ ঘটনা। আপনারাও আমার মতো গতানুগতিক নিয়মে বেড কিনতে গিয়ে এমন নাজেহাল অবস্থায় অনেকেই ভুগছেন। এবার দুঃশ্চিন্তার অবসান ঘটাতে এসেছে সুবর্ণ সুযোগ,যা আপনাকে করবে নিশ্চিত। বিচিত্র নকশা, আকর্ষণীয়

আপনি জানেন কি-গবেষণায় দেখা গেছে, একজন অফিসকর্মী বছরে গড়ে প্রায় ১৭০০ ঘন্টা তার কম্পিউটার স্ক্রিনের সামনে কাটিয়ে দেন অর্থাৎ তিনি দৈনিক প্রায় ৬.৫ ঘন্টা একটানা চেয়ারে বসে স্ক্রিণে কাজ করে থাকেন। কোভিডকালীন এই দূর্যোগে বিশ্বব্যপী সবার জীবন হয়তো কিছুটা থমকে গেছে।