Home  /  2021  /  মার্চ

ডাইনিং রুম বা খাবার ঘর- নামে যাই হোক- খাবার ছাড়াও আরো অনেকভাবেই ঘরটিকের ব্যবহার করা সম্ভব; একই ভাবে সম্ভব এই ঘরের মধ্য দিয়ে ডেকোরেশন স্টেট্মেন্ট তৈরি করা। তবে আপনি যদি সঠিক ভাবে ঘরটিকে সাজিয়ে তোলেন কেবল তখন-ই সেটি সম্ভব হবে। শুধু

নবদম্পতি হিসেবে জীবনের এই নতুন অধ্যায়ের সূচনার সাথে সাথে আপনাকে অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে । আপনার নিজের নীড় বুনে নেয়া হয়ত সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জগুলোর মধ্যে অন্যতম। সাজসজ্জা, আসবাব এবং কোন লেআউট ধারন করবেন- এই ধরনের অনেক প্রশ্ন-ই থেকে যায়

রান্নাঘর আপনার বাড়ির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্থান৷ প্রতিদিনই কয়েকবার করে ব্যবহার করা হয় রান্নাঘর। একটি বাসার রান্নাঘরের সাথে আর দশটা রুমের কোনো তুলনা হয় না। কারন রান্নাঘর প্রতিটি বাড়ির একটি বাঞ্ছনীয় স্থান। তাই রান্নাঘরের সাজসজ্জা হতে হবে খুবই পরিকল্পিত এবং সময়োপযোগী। আমাদের

আপনি কি একটি ডিরেক্টর টেবিল কেনার কথা ভাবছেন? ক্লাসি ও সময়োপযোগী একটি ডিরেক্টর টেবিল এর সন্ধান করছেন? কিন্তু আপনার জন্য আদর্শ ডিরেক্টর টেবিল কিভাবে বাছাই করবেন সেই সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন না? চিন্তার কোন কারন নেই। আপনি হয়ত নিজের পরিচয় তৈরি করতে

বইয়ের যত্নে বুক শেলফ এর কোনো বিকল্প আছে বলুন? না নেই। আপনার প্রয়োজনীয় কিংবা প্রিয় সব বইগুলোই আপনি চাইবেন সাজিয়ে রাখতে। তাই না? কিন্তু একটি বুক শেলফ ছাড়া কিন্তু আপনি বইগুলোর পরিপূর্ণ যত্ন নিতে পারবেন না। যতই গুছিয়ে রাখার চেষ্টা করেন।

আপনি কি আপনার আধুনিক লিভিং রুমের জন্য একটা আকর্ষণীয় টিভি কেবিনেট খুঁজছেন?কিন্তু এখনও বাছাই করতে পারছেন না? তাহলে আপনি একদমই ঠিক জায়গায় এসেছেন। আপনার মত কিন্তু এমন অনেকে আছে যারা লিভিং রুমের জন্য সঠিক ফার্নিচার বাছাই করতে পারেন না। এর

এই যে, সার্চ ইঞ্জিন দিয়ে এখনই খোঁজ শুরু করেছেন? ভাবছেন কীভাবে বুঝলাম? সহজ ব্যাপার প্রথমবার ডিভানের নাম শুনে আমার হাল আপনার মতই হয়েছিল। তবে এখন আমি ডিভানের অনুগত ভক্ত। এবার ভাবছেন কীভাবে হলাম? তবে চলুন একে একে আপনার প্রশ্নের জটগুলো খোলা

অন্দরসজ্জায় ডাইনিং রুম সাজানোর ব্যাপারটি বেশির ভাগ সময়ই সবার চোখ এড়িয়ে যায়। অথচ তিন বেলার খাবার থেকে শুরু করে বিকেলের নাস্তা বা পারিবারিক আড্ডা জমাতে এই রুমের ব্যবহার করতেই আমাদের সবথেকে বেশি দেখা যায়। অনেকে মনে করেন, ডাইনিং রুমে চেয়ার-টেবিল ব্যতীত

আপনার বাসায় অতিথি আসলে সবার আগে চোখ যায় আপনার বসার ঘরে। তাই সবাই চায় বসার ঘরটা একটু পরিপাটি করে সাজিয়ে রাখতে। কথায় বলে ‘ আগে দর্শনধারী পরে গুনবিচারি ’। আপনিও এই কথার সাথে এক মত হবেন। বাইরে থেকে একজন এসে যদি

ঘর যদি আপন না হয় তাহলে ঘরের নামের মর্যাদা থাকেনা। আর এটাই সত্য যে কোনও বাড়ি আপনার নিজের মত করে গড়ে তোলে হচ্ছে আবেগ এবং স্মৃতি । তাই ঘর সাজানোর সময় মনের মাধুরী মিশিয়ে ঘরটি সাজানো উচিত যেন সেই আবেগগুলি