Home  /  2021  /  জুলাই

ফার্নিচার মানেই ধরে নেয়া যায় মোটামুটি বড় এবং দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগ। এমন তো নয় যে আমরা প্রতি বছর আসবাব শপিংএ যাই; এটি বাজেট বান্ধব যেমন নয় তেমন ব্যবহারিকও নয় এবং আরো বড় কথা হচ্ছে এত প্রয়োজনীয়ও নেই। কাস্টমার সবসময় আশা করে যে

বাড়ির ছোট্ট সোনামণিদের মিষ্টি শৈশব যেন কেটে যায় চোখের পলকে। একটু সময় যেতে না যেতেই শুরু হয় কাগজে কিংবা দেয়ালে কলম আর রং-পেনসিলের রঙিন দাগাদাগি। তারপর হাতেখড়ি। মায়ের কাছে অক্ষর আর সংখ্যা চিনতে না চিনতেই ঘনিয়ে আসে স্কুলজীবনে পা রাখার

প্রচন্ড খরতাপ হোক অথবা বৃষ্টি অথবা খুব মন খারাপের ঘুমহীন রাত- সাথে যদি থাকে পছন্দের বই আর এক কাপ ধোঁয়া ওঠা চা তবে আর কি চাই? কারো কারো হয়তো কফি পছন্দ, সেটিও মন্দ না। কিন্তু বই পড়ার পরিবেশ তো লাগবে। একটা

কমপক্ষে ১৪ দিন। কিংবা হতে পারে আরো বেশি। করোনায় আক্রান্ত হলে একদম একা ঘরবন্দী থাকতে হয় লম্বা সময়, যা যেকোনো মানুষের জন্যই সহ্য করা বেশ কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। আর এই স্বেচ্ছাবন্দিত্বের সময়টাতে আক্রান্ত ব্যক্তির শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার সর্বোচ্চ নিশ্চয়তা দেওয়ার

ঘটনা ১: কাজের সূত্রে সাকিফকে ঢাকার বাইরে বাসা নিতে হয়েছে। সারা জীবন বাবা-মায়ের সাথে ঢাকায় থেকেছে সে। কখনো কিছু নিয়েই চিন্তা করতে হয়নি। এখন একা একা থাকতে গিয়ে একরকম অকূল পাথারেই পড়েছে বলা যায়। যে বাসায় সাকিফ উঠেছে সেই বাসাটা আগে

রফিক-ইশরা দম্পতি সংসার বেঁধেছেন ছয় মাস হলো। নতুন সংসারে মেহমানদের আনাগোনা চলছে একটু বেশিই। বাড়ছে প্রয়োজনীয়তা। সে অনুযায়ী দুজন মিলে অল্প অল্প করে সাজাচ্ছেন নতুন সংসার। ছোট ছোট ফার্নিচার দিয়ে সংসার ভরে উঠলেও ডাইনিং টেবিল ও কিচেন কেবিনেটের সমাধান কিছুতেই হচ্ছে

আসিফ সালেহ সাহেবদের অফিসে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল প্রায়ই খুঁজে পাওয়া যায় না। ক্লায়েন্ট এসে অপেক্ষা করছেন, কিন্তু ফাইল পাওয়া যাচ্ছে না౼এমন ঘটনাও ঘটেছে বেশ কয়েকবার। গুরুত্বপূর্ণ আলোচনার সময়ে টেবিলে গাদা গাদা ফাইলের দৃশ্যটাও ক্লায়েন্টদের জন্য খুব একটা সুখকর নয়। অফিসকে তাই

বেডরুম থেকেই শুরু হয় আমাদের দিন। আবার ক্লান্তির রেশ কাটাতে আমরা দিন শেষে ফিরিও সেখানে। বাইরের নানা রকম কাজ সেরে নিজের বেডরুমে ঢোকার আগপর্যন্ত যেন ক্লান্তি ছাড়েই না। কিন্তু সারা দিনের ব্যস্ততা শেষে ঘরে ঢুকে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা জামাকাপড়, কাগজপত্র দেখলে